শিরোনাম
রাণীনগরে আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে মহানন্দা নদীতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে ৩টি মোটরসাইকেলসহ অন্তঃজেলা চোর চক্রের ৪জন গ্রেফতার-বরেন্দ্র নিউজ ঢাকাস্থ ভোলাহাট উপজেলা সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত -বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে বিশিষ্টজনদের সম্মানে জামায়াতরে ইফতার-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে ১০ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ জন গ্রেফতার-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে সাংবাদিকদের সাথে ইফতার করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী খালেক-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের সাংবাদিকদের সাথে ইফতার-বরেন্দ্র নিউজ কুড়িগ্রামে স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদযাপন-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হতে চান হুসেন আলী-বরেন্দ্র নিউজ ভোলাহাটে রমযান উপলক্ষে অসহায়দের মাঝে ২১শে পদক প্রাপ্ত জিয়াউল হকের চাল বিতরণ-বরেন্দ্র নিউজ
সাপাহারে আইহাই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ-বরেন্দ্র নিউজ

সাপাহারে আইহাই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ-বরেন্দ্র নিউজ

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহার উপজেলার ৪নং আইহাই ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুর রহমানের বিরুদ্ধে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা থেকে জোর পূর্বক ৭০০টাকা করে কেটে নেওয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তার প্রতি বিক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছেন এলাকার জনসাধারণ।
জানাগেছে, সাপাহার উপজেলার আইহাই ইউনিয়নে ভিজিডি উপকার ভোগী ৪১৬জন, বয়স্ক ভাতা ৩৬০জন ও বিধবা ভাতা ২৩০জন কার্ডধারী রয়েছেন। গত ১৭ই ফেব্রæয়ারী বয়স্ক ভাতা ও বিধবা ভাতা বিতরনের সময় বন্ধু চুলা দেয়ার নামে প্রত্যেক উপকার ভোগীর কাছ থেকে চেয়ারম্যানের নির্দেশে ৭০০টাকা করে জোর পূর্বক কেটে নেন গ্রাম পুলিশ। অনেকে এর প্রতিবাদ করলে ও বন্ধু চুলা নিতে অস্বীকৃতি জানালে তাদের ভাতা না দিয়ে বাড়ি পাঠানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে ৪১৬জন ভিজিডি কার্ডধারীদের কাছে ৭০০ থেকে ৯০০টাকা করে কেটে নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
অপরদিকে, গত ২১শে ফেব্রæয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও শহীদ দিবস উপলক্ষে ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করাকে কেন্দ্র করে উপজেলার আইহাই উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও রসুলপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সহ সহকারী শিক্ষকদের শারিরিক ভাবে লাঞ্চিত করেন ৪নং আইহাই ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুর রহমানের কতিপয় সমর্থকগণ।
বয়স্ক ভাতা প্রাপ্ত আশড়ন্দ বাজারের খাইরুদ্দীন, আবুল হোসেন, মির্জাপুর গ্রামের শফিউদ্দীন এবং মুংরইলের আমিরুদ্দীনসহ আরো অনেকে বলেন, বয়স্ক ভাতার টাকা পাবো জেনে আমরা ব্যাংকে যাই টাকা তুলতে বয়স্ক ভাতার ৩হাজার টাকা ব্যাংক থেকে তোলা মাত্রই চৌকিদার জাকিরুল, মমিরুদ্দীন ও রেজ্জাক আলী আমাদেরকে ব্যাংকের পিছনে ডেকে নিয়ে গিয়ে ৭০০টাকা করে কেটে নেয়। কিসের টাকা নেওয়া হচ্ছে বলাতে বলে বন্ধু চুলা দেয়া হবে সে জন্য টাকা কেটে নেওয়া হল। আমাদের বাসায় চুলা আছে তাই চুলা নিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা বলে চেয়ারম্যানের নির্দেশ চুলা নিলেও টাকা দিতে হবে না নিলেও টাকা দিতে হবে। এই বলে তারা জোর করে সবার কাছে ৭০০টাকা করে কেটে নিয়ে চলে যান।
বিধবা ভাতা প্রাপ্ত আশড়ন্দ উত্তর পাড়ার জয়তুন বেওয়া বলেন, “আমি বিধবা ভাতার টাকা পাওয়া মাত্রই চৌকিদাররা এসে আমার কাছে ৭০০টাকা নিয়ে চলে গেছে। আমি বল্লাম টাকা নিলেন কেন তো বলছে চুলা দেওয়া হবে, তাই সবার কাছে টাকা নিচ্ছি আপনি বাড়ি চলে যান। তখন শুনে আমি বাড়ি চলে আসছি। কিন্তু চুলা দেয়নি এখনো”।
ফুল দেয়ার বিষয়ে আইহাই উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস ছালেক বলেন, ২১শে ফেব্রæারী শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে প্রতিবছরের ন্যায় আমি আমার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করার জন্য রওনা হলে পথিমধ্যে মধুইল বাজার নামক স্থানে সাদেকুল, নুরুল ইসলাম, আবুল কালাম, রমজান আলীসহ চেয়ারম্যানের গ্রামরে বেশ কয়েকজন কতিপয় সমর্থকগনেরা গাড়ীর পথরোধ করে দাঁড়ায় এবং মধুইল বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করতে হবে বলে জোর জবরদস্তি চালায়। এবং আমাদের অকথ্য ভাষায় গালি গালাজসহ শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করা হয়।
অপরদিকে, রসুলপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার তার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একই স্থানে পুষ্পস্তবক অর্পন করতে আসার সময় একই স্থানে একই ভাবে তাকেও লাঞ্চিত করে ওই বাহিনী। এ সময় নিয়মানুযায়ী ওই শিক্ষা প্রতিষ্টানের প্রধানরা মাননীয় খাদ্য মন্ত্রীর নির্দেশে ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করতে চাইলে বাকবিন্ডার একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের সমর্থকরা তাদরে উপর চড়াও হয়ে খাদ্য মন্ত্রীসহ তাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকদের শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করে তারা। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।
চেয়ারম্যান হামিদুর রহমান তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, চুলা দেয়ার নামে বন্ধু ফাউন্ডেশনের যে লোক বিধবা ভাতা ও বয়স্ক ভাতা থেকে টাকা কাটা কাটতেছিল বিষয়টা আমি জানা মাত্রই তাকে বের করে দিয়েছি। আমি কোন প্রকার টাকা লেনদেনের সাথে জড়িত নই। এর সাথে আমার কোন সংশ্লিটতা নেই।
অপর এক প্রশ্নে তিনি বলেন, শহীদ মিনারে ফুল দেওয়া নিয়ে কাওকে লাঞ্চিত করা হয়নি। যেখানে ঘটনা ঘটেছে সেখানকার স্থানীয় কিছু লোকজন তাদের গাড়ী আটক করেছিল, স্থানীয় শহীদ মিনারে ফুল দেয়ার জন্য। ঘটনাক্রমে আমি সেখানে ছিলাম পরে আমি গিয়ে পরিস্থিতি ঠান্ডা করেছি।
সাপাহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ্জাহান হোসেন বলেন, ২১শে ফেব্রæয়ারীতে ফুল দেওয়া নিয়ে গন্ডোগলের বিষয়টা আমি শুনেছি। অন্যান্য প্রতিষ্ঠান যখন ফুলদিতে আশড়ন্দ শহীদ মিনারে আসতেছিল তখন সে নাকি পথিমধ্যে একটা ব্যারীগেট দেন। আমি বিষয়টা খাদ্য মন্ত্রী মহোদয়কে জানিয়েছি তিনি বিষয়টা দেখবেন বলে সকলকে শান্ত থাকতে বলেছেন। আর বন্ধু চুলা দেয়ার নামে বয়ষ্ক ভাতা বা বিধবা ভাতা থেকে টাকা কাটার কোন সরকারী নিয়ম বা বাধ্যবাদকতা নেই। সরকার বন্ধু চুলার জন্য জনসাধারনকে উৎসাহিত করতে বলেছেন জোরপূর্বক কিছু করতে নয়। বয়ষ্ক ভাতাÑবিধবা ভাতা থেকে ৭০০টাকা করে কাটা হচ্ছে এই বিষয়টা আমি জানার সঙ্গে সঙ্গে ইউএনও মহোদয়কে অবহিত করেছি এবং আমি ও ইউএনও চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলেছি তারপর থেকে তিনি টাকা কাটা বন্ধ রেখেছেন।
সাপাহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কল্যাণ চৌধূরী বলেন, ২১শে ফেব্রæয়ারীতে ফুল দেয়ার ঘটনায় গন্ডোগলের বিষয়টি অবগত আছি। আর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বয়ষ্ক ভাতাÑবিধবা ভাতা থেকে টাকা কাটার বিষয়টা জানতে পেরে আমি সঙ্গে সঙ্গে তাকে ফোন করে তাকে সতর্ক করে দিয়েছি এবং এসব করতে নিষেধ করেছি। লিখিত কোন অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




<figure class=”wp-block-image size-large”><img src=”http://borendronews.com/wp-content/uploads/2020/07/83801531_943884642673476_894154174608965632_n-1-1024×512.jpg” alt=”” class=”wp-image-17497″/></figure>

© All rights reserved © 2019 borendronews.com
Design BY LATEST IT